1. kamruzzaman78@yahoo.com : kamruzzaman Khan : kamruzzaman Khan
  2. ssexpressit@gmail.com : savarsangbad :
বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ০৯:১৭ অপরাহ্ন

সাভারে চুরি হওয়া সন্তানকে মায়ের বুকে ফিরিয়ে দিলো পুলিশ কর্মকর্তা

  • আপডেট সময় : রবিবার, ২৪ মার্চ, ২০২৪

সংবাদ রিপোর্ট: চুরি হয়ে যাওয়া আড়াই বছরের ছোট্ট নুসরাত এক সপ্তাহ পর ফিরে পেলো মায়ের বুকের উষ্ণ ছোঁয়া। আর হারিয়ে যাওয়া আদরের যাদু মানিক সন্তানকে বুকে ফিরে পেয়ে মায়ের চোখে আনন্দ অশ্রু। এমন দৃশ্যের অবতারণা হয় ২৩ মার্চ শনিবার সন্ধ্যায় সাভারের আমিনবাজার এলাকায়। আর এই মধুর মিলনের কারিগর সাভার মডেল থানাধীন আমিনবাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ উপ-পরিদর্শক হারুন অর রশীদ। গত ১৬ মার্চ শনিবার এজন্য দুপুরে শিশু নুসরাতকে কৌশলে চুরি করে পালিয়ে যায় তাদের প্রতিবেশী মাহবুব সিকদার। এরপর নুসরাতের বাবা মো. শাহিনের দায়ের করা মামলায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ২৩ মার্চ শনিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ থানা এলাকা থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করেন পুলিশ কর্মকর্তা হারুন। সেই সঙ্গে গ্রেফতার করেন শিশু পাচারকারী চক্রের সদস্য মাববুবকে। গ্রেফতার মাহবুব সিকদার (৪৫) পিরোজপুর জেলার কাউখালী থানার কাউখালী এলাকার সোহরাব সিকদারের ছেলে। সে শিশু পাচার চক্রের সক্রিয় সদস্য। পুলিশ জানায়, অভিযুক্ত মাহবুব ও ভুক্তভোগী শিশুটির পরিবার পাশাপাশি রুমে ভাড়া থাকতো। সেই সুবাদে সে মাঝে মধ্যে নুসরাতকে তাদের ঘরে গিয়ে আদর করতো মাহবুব। এরই পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৬ মার্চ সুযোগ বুঝে মাহবুব শিশুটিকে কোলে নিয়ে রুম থেকে বের হয়ে যায়। পরে শিশুটির পরিবার তার রুমে গিয়ে মাহবুব ও শিশু নুসরাতকে না পেয়ে আশপাশে অনেক খোঁজখুজি করে। পরে কোথাও শিশুসহ তাকে না পেয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন শিশুটির বাবা। এদিকে, হারানো সন্তানকে ফিরে পেয়ে নুসরাতের বাবা মো. শাহিন বলেন, মেয়ে হারানোর কথা শুনে আমার তো বিশ্বাসই হচ্ছিল না আমার বুকের মানিক চুরি হয়ে গেছে। আমার সন্তানকে ফিরে পেয়ে আমার অনেক ভালো লাগছে। পুলিশ স্যারেরা অনেক কষ্ট করে আমার সন্তানকে সুস্থভাবে ফিরিয়ে দিলো, আল্লাহ যেন তাদের ভালো করেন। এখন আমি অনেক খুশি, আমি তাদের ধন্যবাদ জানাই। আর যে আমার বাচ্চাকে চুরি করছিল তার আমি বিচার চাই। এ বিষয়ে শিশুটিকে উদ্ধারকারী পুলিশ কর্মকর্তা ও আমিনবাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ উপ-পরিদর্শক (এসআই) হারুন অর রশীদ ঢাকা মেইলকে বলেন, থানায় অভিযোগ দায়েরের পর থেকেই শিশুটিকে উদ্ধারে কার্যক্রম চালিয়ে যাই। পরে গোপন সংবাদ ও তথ্য-প্রযুক্তির সহযোগিতায় শনিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ থেকে চুরি যাওয়া শিশুটিকে উদ্ধার করি এবং অভিযুক্ত মাহবুবকে গ্রেফতার করি। এসময় এই পুলিশ কর্মকর্তা আরও বলেন, এরা একটি চক্র যারা ভাড়াটিয়া সেজে শিশু বাচ্চা চুরি করে নিয়ে পাচার করে দেয় অথবা অন্যত্র বিক্রি করে দেয়। অভিযোগ পাওয়ার পর আমরা বাড়ির মালিকের নিকট অভিযুক্ত ভাড়াটিয়ার তথ্য চাইলে তিনি তা দিতে পারেনি, এখন বলেন, এই ঘটনার দায় কার? তবুও একসপ্তাহ পরিশ্রমী অভিযান করে বাচ্চাটি অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করতে সক্ষম হই। তাই আমি সকলের কাছে অনুরোধ করছি, দয়া করে বাড়ি ভাড়া দেওয়ার পূর্বে অবশ্যই ভাড়াটিয়ার বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ করে রাখবেন। অন্যথায় এসব অপ্রীতিকর ঘটনায় বাড়ির মালিকদেরও দায় নিতে হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ :